দাগনভূঞা পৌর নির্বাচন: রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর অভিযোগ


দাগনভূঞা পৌরসভা নির্বাচনে ২ ও ৪ নম্বর ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থীদের বিরুদ্ধে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ে অভিযোগ করেছেন বিদ্রোহী প্রার্থীরা। বুধবার (৬ জানুয়ারি) ওই ওয়ার্ডেগুলোর দুই কাউন্সিলর প্রার্থী শহীদ উল্লাহ ও জসিম উদ্দিন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণ বিধি ভঙ্গের অভিযোগ করেন।

অভিযোগের ব্যাপারে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা নাছির উদ্দিন পাটোয়ারী জানান, অভিযোগগুলো তদন্ত করে আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে সংশ্লিষ্ট থানাকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

অভিযোগ প্রসঙ্গে ৪ নম্বর ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থী জসিম উদ্দিন (ডালিম মার্কা) জানান, গত মঙ্গলবার দাগনভূঞা পৌরসভার গুদাম রোডে তার লোকজন পোস্টার লাগাতে গেলে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী আব্দুল কুদ্দুস মিজানের (উটপাখি) লোকজন তাদের ধাওয়া করে। পরে নিজ বাড়ি হাসেম মৌলভী বাড়ি দরজার সামনে দোকানে রাখা ৪শ পোস্টার নিয়ে যায় রুবেল, ইমন ও সোহেলসহ মিজানের লোকজন।

তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট বলে জানান আওয়ামী লীগের প্রার্থী আব্দুল কুদ্দুস মিজান। তিনি বলেন, নির্বাচনে পরাজিত হওয়ার সম্ভাবনা দেখে জসিম উদ্দিন বিশৃঙ্খলা তৈরির চেষ্টা চালাচ্ছেন।

অন্যদিকে পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডে বিদ্রোহী প্রার্থী শহীদ উল্লাহ (গাজর) তার ছেলেকে মারধরের অভিযোগ এনে তার প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী সাইফুল ইসলাম (উটপাখি) এর বিরুদ্ধে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ করেছেন। এ ব্যাপারে সাইফুল ইসলাম জানান, শহীদ উল্লাহর ছেলেকে মারধরের বিষয়টি ভিত্তিহীন।

দাগনভূঞা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইমতিয়াজ আহমেদ জানান, জেলা নির্বাচন কার্যালয় থেকে পাওয়া দুটি অভিযোগের বিষয়ে খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

মন্তব্যসমূহ

আপনার মূল্যবান মতামত প্রদান করুন

    কোনো মন্তব্য খুঁজে পাওয়া যায় নি

মন্তব্য করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।